mb

জেলার দাবি জুরালো হচ্ছে

1,475

স্টাফ রিপোর্টার।জেলার দাবি জুরালো হচ্ছে দেশের উত্তর পূর্বাঞ্চলের। সেখানে ৪ উপজেলা কুলাউড়া,জুড়ি,বড়লেখা ও কমলগঞ্জ নিয়ে পৃথক পর্যটন জেলার দাবিতে সোচ্চার সেই অঞ্চলের বিভিন্ন শ্রেণীর পেশার মানুষ। কুলাউড়া উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অাব্দুল বাছিত বাচ্চু এই দাবি জানিয়ে খোদ প্রধান মন্ত্রীকে খোলা চিঠি দিলে আলোচনার নতুন মাত্রা যোগ হয়।
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে চেয়ারম্যানের নিজ আইডি থেকে খোলা চিঠি অাপ হলে কয়েক ঘন্টার তা ভাইরাল হয়।। জেলার দাবিতে ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল বাছিত বাচ্চুর খোলা চিঠি মৌলভীবাজার টোয়েন্টিফোর ফোর ডটকমে হুবুহুবু তুলে ধরা হল।

প্রতি
জননেত্রী শেখ হাসিনা
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার।

বিষয়ঃউত্তর-পূর্বাঞ্চলের কুলাউড়ায় দেশের ৬৫ তম জেলা হলে বাড়বে পর্যটকদের সুবিধে আর সরকারের রাজস্ব আয়
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী,
আপনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার ভিশন ২০২১ ও ২০৪১ ঘোষণা করেছে।নেওয়া হয়েছে নানা পরিকল্পনা।এরই অংশ হিসেবে বর্তমান সরকার পর্যটন খাতের উন্নয়ন ও বিকাশ এবং এই খাতের আয় বাড়াতে চাচ্ছে। এ নিয়ে চলছে নানামুখী কর্মপরিকল্পনা ও তৎপরতা। আপনার সরকারের মাননীয় মন্ত্রী ও সচিবগণসহ বিভাগীয় কর্মকর্তারা দেশের আনাচে-কানাচে গিয়ে বিশিষ্টজনের মতামত নিচ্ছেন। চলছে মতবিনিময় পরামর্শ সভা আর নানা প্লানিং।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী,পর্যটন খাতের সার্বিক উন্নয়ন বিষয়ে বিগত ২৫ অক্টোবর ১৯ শুক্রবার মৌলভীবাজার জেলায়ও এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী,সচিব, পর্যটন কর্পোরেশনের চেয়ারম্যানসহ মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগন এবং জেলার বিশিষ্ট নাগরিকেরা উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু সময়ের সল্পতার কারণে বিজ্ঞ নাগরিকদের অনেকেই এ বিষয়ে তাদের মুল্যবান মতামত ব্যক্ত করতে পারেননি। আমি নিজেও প্রায় ১০ মিনিট বলেছি। কিন্তু মনের মধ্যে এ বিষয়ে জমাট বাধা কথামালার এক দশমাংশও বলতে পারিনি।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, যেহেতু অনুষ্ঠানে বলা হয়েছে এ বিষয়ে পরবর্তীতে প্রয়োজনে লিখিত পরামর্শও দেয়া যাবে। তাই আমি এই খোলা চিঠির মাধ্যমেই আমার অসমাপ্ত মতামত আপনার সরকারের বরাবরে তুলে ধরতে চাই।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনি নিশ্চয় জানেন পর্যটকদের জন্য যেমন আকর্ষণীয় স্পষ্ট দরকার হয়, ঠিক তেমনি প্রয়োজন হয় সহজ যোগাযোগ ব্যবস্থা,মানসম্মত খাবার ও আবাসিক ব্যবস্থা, প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা আর গাইডলাইন। আমি ক্ষুদ্র জনপ্রতিনিধি হিসেবে মনে করি এশিয়ার বৃহত্তম হাওর হাকালুকি হাওর, মাধবকুণ্ড ও হাম হাম জলপ্রপাত,মাধবপুর লেক, লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান, শমসের নগর বিমান ঘাটি, অসংখ্য চাবাগান, আদিবাসী পল্লী, দীর্ঘ সীমান্ত এলাকা,চাতলাপুর স্থলবন্দর, মুড়াই ছড়া ও মাধবকুণ্ড ইকোপার্ক, নদী ছড়া সবই দেশের পূর্বাঞ্চলের কুলাউড়া, জুড়ি, বড়লেখা ও কমলগঞ্জেঅবস্থিত । তাই এই এলাকার কুলাউড়া, কমলগঞ্জ,জুড়ি ও বড়লেখা উপজেলা নিয়ে আরো একটি পৃথক জেলা তথা দেশের ৬৫ তম জেলা করা হলে পর্যটন খাতের অভাবনীয় সাফল্য আসবে। যে জেলায় ৪ উপজেলা, ৩ পৌরসভা,৩৮টি ইউনিয়ন, ১০টি ছোট বড় নদ-নদী, অর্ধশতাধিক চা বাগান, হাকালুকি হাওর, কুলাউড়া রেলওয়ে জংশন,কালা পাহাড় পর্বতশৃঙ্গ, বিমান ঘাটি সবই আছে।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, প্রস্তাবিত জেলার জনসংখ্যা হবে প্রায় ১১ লাখ আর জেলার আয়তন হবে ১৬৪৩.৯৭ বর্গকিলোমিটার।তিনটি সংসদীয় আসন (১.বড়লেখা -জুড়ী,২.কুলাউড়া ও ৩.কমলগঞ্জ) হবে নতুন এই জেলায়। প্রস্তাবিত জেলার নাম হতে পারে কুলাউড়া /হাকালুকি/মাধবকুন্ড / মনু অথবা গ্রহণযোগ্য যেকোন একটি। আর নতুন এই জেলা হলে পর্যটকদের যেমন আকর্ষণ আর এ খাতের আয় বাড়বে ঠিক তেমনি অবহেলিত পূর্বাঞ্চলের ব্যাপক উন্নয়ন আর পরিবর্তন হবে ।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, প্রস্তাবিত জেলার হেডকোয়ার্টার হবে কুলাউড়া বা এর আশপাশে যেখান থেকে মৌলভীবাজার,কমলগঞ্জ,বড়লেখাসহ পর্যটন স্পষ্টগুলোতে যাওয়া যাবে মাত্র এক ঘন্টারও কম সময়ের মধ্যে। এতে পর্যটকদের যাতায়াত ব্যয় কমে যাবে অর্ধেক। দেশের যেকোন এলাকা থেকে হেলিকপ্টার / বিমান, ট্রেনে অথবা সড়ক পথে এখানে আসতে পারবেন পর্যটকেরা।আর জেলা সদর হলে এই এলাকার নিরাপত্তা ও যোগাযোগ ব্যবস্থা এবং ভৌত অবকাঠামো গড়ে উঠবে। ফলে পর্যটকদের আবাসিক সমস্যারও সমাধান হবে।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, জেলার আয়তন আর জনসংখ্যা দেশের অনেক জেলার চেয়ে বেশী হবে।যেমন দেশের উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ের আয়তন ১৪০৪.৩৩ বর্গকিলোমিটার, রাজবাড়ীর আয়তন ১০৯২.৩০ বর্গকিলোমিটার, দক্ষিণ পশ্চিমের মাগুরার আয়তন ১০৪৯.০০বর্গকিলোমিটার, ,চুয়াডাঙ্গার ১১৭০.৮৭ বর্গকিলোমিটার আর মধ্যাঞ্চলের নারায়ণগঞ্জ জেলার আয়তন মাত্র ৬৮৩.১৭ বর্গকিলোমিটার। এই সবকটির আয়তন প্রস্তাবিত জেলার চেয়ে অনেক কম। এমনি অনেক জেলায় সংসদীয় আসন মাত্র ২ টি করে।আর পার্বত্য অঞ্চলে তো একেক জেলায় মাত্র একটি করে সংসদীয় আসন।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এই প্রস্তাবনার বিষয়ে আমি আপনার সুদৃষ্টি এবং সদয় হস্তক্ষেপ কামনা করছি।
আপনার গুণমুগ্ধ

new ads

মোহাম্মদ আব্দুল বাছিত (বাচ্চু)
চেয়ারম্যান, ১০ নং হাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদ
কুলাউড়া, মৌলভীবাজার।

10