ফেসবুকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে নিয়ে কটুক্তি করায় ডেপুটি জেলার বরখাস্ত

226

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি :স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে নিয়ে কটুক্তির দায়ে সাতক্ষীরার ডেপুটি জেলার ডলি আক্তার ওরফে জলি মেহেজাবিন খানকে বরখাস্ত করে কারা অধিদপ্তরে ক্লোজ করা হয়েছে। রোববার সন্ধ্যায় কারা অধিদপ্তর থেকে সাতক্ষীরা জেলা কারাগারে নির্দেশনা পত্র এসেছে বলে নিশ্চত করেছেন সাতক্ষীরা জেল সুপার আবু জায়েদ।
তিনি বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে নিয়ে ফেসবুকে কটুক্তির দায়ে সাতক্ষীরার ডেপুটি জেলার ডলি আক্তারকে সাময়িক বরখাস্ত করে কারা অধিদপ্তরে ক্লোজ করা হয়েছে। সন্ধ্যায় একটি এ সংক্রান্ত পত্র এসেছে সাতক্ষীরা কারা দপ্তরে।
গত ৩ সেপ্টেম্বর ডেপুটি জেলার ডলি আক্তারের ব্যবহৃত জলি মেহেজাবিন খান ফেসবুক আইডি থেকে একটি পোষ্টকৃত ছবির মন্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে বিলাই (বিড়াল) লিখে কটুক্তি করেন।
এ ঘটনায় সংবাদ প্রকাশ হলে তোলপাড় শুরু হয় কারা অধিদপ্তরে। অবশেষে বরখাস্ত করা হল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে কটুক্তিকারী ডেপুটি জেলার ডলি আক্তারকে।
উল্লেখ্য, সাতক্ষীরা জেলখানার ডেপুটি জেলার ডলি আক্তার ফেসবুক ব্যবহার করেন জলি মেহেজাবিন খান নামে। পহেলা সেপ্টেম্বর কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগারে কারারক্ষী বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্সের একটি অনুষ্ঠানে ধারাভাষ্যকারের দায়িত্ব পালন করেন এই নারী কারা কর্মকর্তা। ধারাভাষ্যকার দেওয়ার মুহূর্তে নিজের সেলফি তুলে রাখেন তিনি। দুই দিন পর ৩ সেপ্টেম্বর সকাল ৮.৪৯ মিনিটে তিনি তার ব্যবহৃত জলি মেহেজাবিন খান নামের ফেসবুকে সেই ছবিটি পোষ্ট করেন। ছবির ক্যাপশানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বানানটি ভুল লেখেন এই নারী ডেপুটি জেল সুপার। ছবিতে অনেকেই মন্তব্য করেছেন এর মধ্যে শারমিন ববি নামের একজন নারী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বানানটি ঠিক করার জন্য পরামর্শ দেন। এর প্রতি উত্তরে ডেপুটি জেল সুপার ডলি আক্তার মন্তব্য করেন, আমি চাটুকারিতা একদম পছন্দ করি না আফা, চাকরি করি জেলখানায়, এরকম বহু নামি দামী ব্যান্ড ভিতরে আসলে বিলাই হয়ে যায়।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে নিয়ে তার এ উদ্যত্বপূর্ণ মন্তব্যের পর সাতক্ষীরার ডেপুটি জেল সুপার ডলি আক্তার ওরফে জলি মেহেজাবিন খানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ফেসবুক আমার ব্যক্তিগত ব্যাপার। সেখানে আমি কি লিখবো সেটা অন্য কাউকে তো বলবো না। আর কোন প্রসঙ্গে কার সাথে বলেছি সেটাও আপনাকে জানতে হবে ?
তবে জেল সুপার আবু জায়েদকে কটুক্তির বিষয়ে ডেপুটি জেলার ডলি আক্তার জানিয়েছিলেন, ওই মেয়েটার সঙ্গে আমার ঝগড়া রয়েছে। সেজন্য লিখেছি। লেখাটা আমার ভুল হয়ে গেছে।
এদিকে, সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে নিয়ে এমন উদ্যত্তপূর্ণ ফেসবুক মন্তব্যের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে ডেপুটি জেল সুপার ডলি আক্তার ওরফে জলি মেহেজাবিন খানের শাস্তির দাবি জানাই সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদিকুর রহমান।