মৌলভীবাজার চা বাগানে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগির সংখ্যা বাড়ছে! একজনের মৃত্যু

261

মৌলভীবাজার টুয়েন্টিফোর ডট কম: প্রচন্ড গরম ও বিশুদ্ধ পানির কারণে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে চা বাগানগুলোতে ডায়রিয়ার আক্রান্ত রোগির সংখ্যা বাড়ছে।
গত এক সপ্তাহে ৯২ জন ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এর মধ্যে রাজকুমার (৬০) নামে একজন চা বাগান শ্রমিক মারা যাবার খবর পাওয়া গেছে।
জানা গেছে, ডায়রিয়া আক্রান্ত হয়ে গত ১ এপ্রিল থেকে চলতি মাসের ৯ তারিখ দুুপুর ১টা পর্যন্ত ৫২৮ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন। এদের বেশিরভাগই চা বাগানের নারী শ্রমিক ও শিশু।
শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার মো.মহসিন এতথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, চা শ্রমিক নারী ও শিশু এবং পুরুষ মিলে ৬০জন ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছে। বিশেষ ভাড়াউড়া চা বাগানে ডায়রিয়ায় মহামারি দেখা দিয়েছে।’

শ্রীমঙ্গল শহরতলীর ফিনলে টি কোম্পানির ভুরভুরিয়া ছয় শয্যার চা বাগানের নিজস্ব ডিসপেন্সারিতে গত ১ সপ্তাহে ৩৪ জন ডায়রিয়া রোগী চিকিৎসা নিয়েছে। পরে তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এর মধ্যে এ চা বাগানের রাজকুমার (৬০) নামে এক রোগীর মৃত্যু হয়।

ভাড়াউড়া চা বাগানের কম্পাউন্ডার প্রদীপ চক্রবর্ত্তী জানান,‘বিশুদ্ধ পানির অভাব, অপুষ্টি ও ক্ষতিকর খাবার গ্রহণের কারণে চা বাগানের শ্রমিকরা ডায়রিয়ার শিকার বেশি হচ্ছেন।’

ভুরভুরিয়া চা বাগানের চিকিৎসক ডা. সাদাত হোসেন মোহাম্মদ আসলাম বলেন, খরার কারণে ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। ডায়রিয়া মোকাবিলায় আমাদের যতটুকু প্রয়োজন তা চিকিৎসাসেবা দিয়ে যাচ্ছি। তবে রোগীর চাপে স্থান সংকুলান না হওয়ায় অনেক রোগীকে অন্যত্র স্থানান্তর করা হচ্ছে। তবে এখন কিছুটা কম আছে।’

শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শাখাওয়াৎ হোসেন বলেন, ডায়রিয়া নিয়ন্ত্রণে সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। চিকিৎসা চলছে।

মৌলভীবাজারের সির্ভিল সার্জন শাহজাহান কবির চৌধুরী বলেন, বুধবার রাতের হিসাব মতো সারা জেলায় ৬৫জনের মতো ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে রোগিরা হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। তিনি আরও বলেন, প্রচন্ড গরম আর বিশুদ্ধ পানির কারণে ডায়রিয়া প্রকোপ দেখা দিয়েছে।