কুলাউড়ায় পৌর বিএনপির কাউন্সিল সম্পন্ন: সভাপতি মলাই, সম্পাদক সোহেল

515

মৌলভীবাজার টুয়েন্টিফোর ডট কম: উৎসব মুখর পরিবেশে মৌলভীবাজারের কুলাউড়া পৌর বিএনপির সম্মেলন ও কাউন্সিল সম্পন্ন হয়েছে। গোপন ব্যালটের মাধ্যমে নতুন পৌর বিএনপির কমিটি গঠন হয়েছে। এতে মুহিবুর রহমান মলাই সভাপতি, মুজিবুল আলম সোহেল সাধারণ সম্পাদক ও জুবের খান সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন।

শুক্রবার (৩ মে) বিকাল ৪টার দিকে স্থানীয় পালকী কমিউনিটি সেন্টারে প্রথম ধাপে কাউন্সিল উপলক্ষে আলোচনা সভা এবং দ্বিতীয় ধাপে কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়।

গোপন ব্যালটের মাধ্যমে ভোট প্রদান করেন ৩৮ জন কাউন্সিলর। পরে মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সাংসদ এম নাসের রহমান নির্বাচনে প্রার্থীদের প্রাপ্ত ভোট ও বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন। সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক পদে মোট ৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

পৌর বিএনপির সভাপতি পদে ১৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মুহিবুর রহমান মলাই। তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বি শামীম আহমদ চৌধুরী পেয়েছেন ১৮ ভোট।

সাধারণ সম্পাদক পদে ২১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মুজিবুল আলম সোহেল। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আব্দুল গাফফার চৌধুরী পেয়েছেন ১৬ ভোট।

সাংগঠনিক সম্পাদক পদে ১৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন জুবের খান। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি শামীম আহমদ পেয়েছেন ১৪ ভোট।

কুলাউড়া পৌর বিএনপির আহ্বায়ক ওলিউর রহমান শিবলুর সভাপতিত্বে এবং পৌরসভার কাউন্সিলর রাসেল আহমদ চৌধুরী, কায়ছার আরিফ ও মো. হারুনুর রশীদের যৌথ সঞ্চালনায় কাউন্সিল পূর্বক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সাংসদ এম নাসের রহমান। তিনি বলেন, দ্বিধা বিভক্ত কুলাউড়া বিএনপি আজ ঐক্যবদ্ধ। আগামীর আন্দোলন সংগ্রামে, নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনে সবাইকে এক হয়ে মাঠে নামতে হবে। তিনি আন্দোলনের কেন্দ্রবিন্দু ঢাকাকে উল্লেখ করে বলেন, মৌলভীবাজারকে অচল করে দিয়ে নেত্রীকে মুক্ত করা সম্ভব হবে না। ঢাকায় আন্দোলন শুরু করতে হবে। আমরা মৌলভীবাজার জেলা বিএনপি সেখানকার আন্দোলনের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করে রাজপথে দাবানল সৃষ্টি করে নেত্রীকে মুক্ত করবো।

কাউন্সিলে প্রধান বক্তা হিসেবে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিজান বলেন, জেলার প্রত্যেকটি উপজেলায় বিএনপিকে ঐক্যবদ্ধভাবে নেত্রীকে মুক্তির আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। সেই লক্ষ্যে সবাইকে এক হয়ে সাংগঠনিক কার্যক্রম চালু রাখতে হবে। আমাদের চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে আগামীতে বিএনপির সকল কর্মসূচিতে আপনাদের স্বতঃস্ফুর্ত ভ’মিকা এখন সময়ের দাবি।

এছাড়াও বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সহ সভাপতি ও সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবি এড. আবেদ রাজা, সাংগঠনিক সম্পাদক বকশী মিসবাহুর রহমান, দপ্তর সম্পাদক ইদ্রিস আলী, জেলা বিএনপির সদস্য ও কুলাউড়ার সাবেক পৌর মেয়র কামাল উদ্দিন আহমদ জুনেদ, বিএনপি নেতা শওকতুল ইসলাম শকু, জেলা বিএনপির সদস্য ও কুলাউড়া ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সভাপতি বদরুজ্জামান সজল, বিএনপি নেতা এম এ মজিদ, রেদওয়ান খান, জেলা যুবদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাওছার আহমদ নিপার, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আকিকুর রহমান সোহান, উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি এম ফয়েজ উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন মোল্লা প্রমুখ।