‘ভাইকে হত্যা করে’ ভাবিকে বিয়ে, ৩ বছর পর সিলেটে গ্রেপ্তার

212

ভাবিকে বিয়ে করে তিন বছর ধরে সংসার করতে থাকা যুবক গ্রেপ্তার হয়েছেন, যার বিরুদ্ধে বড় ভাইকে হত্যার অভিযোগ রয়েছে।

ঢাকা মেট্রো দক্ষিণ সিআইডি ডেমরা ইউনিটের জ্যেষ্ঠ এএসপি মো. ইকবাল হোসেন জানান, রোববার রাত সাড়ে ১১টার দিকে সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে বিশেষ অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার মো. টিপু ব্যাপারী (২৪) মাদারীপুরের কালকিনী উপজেলার ক্রকিরচর এলাকার হায়দার আলী ব্যাপারীর ছেলে। বছর তিনেক আগে টিপু, তার ভাই বাসচালক রুবেল ও রুবেলের স্ত্রী রিমা আক্তার কাকলী ঢাকার কেরাণীগঞ্জ এলাকায় বাস করতেন।

রুবেল ও টিপু এক মায়ের সন্তান হলেও তাদের বাবা দুইজন। রুবেলের বাবা মারা যাওয়ার পর তার মা হায়দার আলী ব্যাপারীকে বিয়ে করেন।

এএসপি ইকবাল মামলার নথির বরাতে বলেন, কেরাণীগঞ্জে থাকার সময় রিমার সঙ্গে টিপুর পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক হয়। এ নিয়ে দুই ভাইয়ের মধ্যে মনোমালিন্য হলে ২০১৬ সালের ১৮ মে টিপু তার বড় ভাই রুবেলকে ছুরিকাঘাতে খুন করেন। পরে রিমাকে নিয়ে পালিয়ে যান।

এর দুই দিন পর রুবেলের সৎ বাবা (টিপুর বাবা) হায়দার আলী থানায় মামলা করেন।

গ্রেপ্তার টিপুকে জিজ্ঞাসাবাদের তথ্য দিয়ে এএসপি ইকবাল বলেন, টিপু এতদিন সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ এলাকায় নিজের আসল পরিচয় গোপন করে ফাহিম পরিচয়ে রিমাকে নিয়ে বসবাস করছিলেন।

“টিপু সুকৌশলে তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন নম্বর ও রিমার মোবাইল ফোন নম্বর অন্য লোকের নামে নিবন্ধন করে ব্যবহার করতেন। গ্রেপ্তার এড়ানোর জন্য পরিবারের কারও সঙ্গে যোগাযোগ করতেন না।”

আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে তাদের অবস্থান শনাক্ত করা হয় বলে জানান এএসপি ইকবাল।

টিপুকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ দশ দিনের হেফাজতে (রিমান্ড) নেওয়ার আবেদন করেছে বলেও ইকবাল জানান।

ইকবাল জানান, এ মামলায় বছর খানেক আগে রিমা আক্তার কাকলীকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছিল। এরপর আদালতের জামিনে তিনি ছাড়া পান। তাই তাকে আর আটক করা হয়নি।