‘নাগরিক সমস্যা সমাধান করতে না পারলে পদ ছেড়ে দিন’ ড. আব্দুস শহিদ এমপি

415

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি:  জাতীয় সংসদের সাবেক চিফ হুইপ উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহিদ এমপি বলেছেন, শ্রীমঙ্গল পৌরসভা মুখ থুবড়ে পড়ে আছে। পর্যটন নগরী খ্যাত শ্রীমঙ্গল শহর নানা সমস্যায় জর্জরিত। যত্রতত্র ময়লা আবর্জনা, খোলা ড্রেন, রাস্তার উপর অবৈধ গাড়ীর পার্কিং, ফুটপাত বেদখল নাগরিক সমস্যা তীব্র আকার ধারন করেছে। পৌরসভার কাউন্সিলরা মার্কেটের দোকান এবং ফুটপাত বরাদ্দ দিয়ে দুর্নীতির আশ্রয় নিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন। নাগরিকরা ট্যাক্স দিচ্ছেন কিন্তু নাগরিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। এভাবে চলতে পারে না। তিনি পৌরসভার প্রতিনিধিদের উদ্দেশ্যে বলেন, নাগরিক সমস্যা সমাধান করতে না পারলে পদ ছেড়ে দিন, ঐকান্তিক প্রচেষ্ঠা থাকলে এসব সমস্যা একদিনেই সমাধান করা সম্ভব।
তিনি আরো বলেন, এই পৌরসভার নির্বাচনের মেয়াদ উর্ত্তীনের দীর্ঘ দিন অতিবাহিত হলেও এখনও নির্বাচনের কোন লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। এছাড়া পৌরসভায় প্রচুর ভুয়া ভোটার রয়েছে বলে তিনি জানান। আগামী নির্বাচনে তিনি ভুয়া ভোটার ধরার জন্য নিজেই মাঠে থাকবেন বলে হুঁশিয়ারি দেন।
গত সোমবার রাতে স্থানীয় এক রেষ্টুরেন্টে শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবের আয়োজনে ‘শ্রীমঙ্গলের উন্নয়ন সম্ভাবনা নাগরিক সমস্যা ও উত্তরণের উপায় শীর্ষক এক মতবিনিময় সভা’য় উত্থাপিত নাগরিকদের বিভিন্ন সমস্যাদির প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
উক্ত মতবিনিময় সভায় শহরের বিভিন্ন শ্রেণী পেশার বিশিষ্টজনরা তাদের সুচিন্তিত মতামত তুলে ধরেন।
শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবের সভাপতি বিশ্বজ্যোতি চৌধুরী’র সভাপতিত্বে ও প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এম ইদ্রিস আলী’র সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন শ্রীমঙ্গল সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর আবুল কালাম আজাদ, শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ সার্কেল) আশরাফুজ্জামান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহিদুল আলম, লন্ডন থেকে প্রকাশিত নতুন দিন পত্রিকার ভাইস চেয়ারম্যান এম.এ মতিন, দ্বারিকাপাল মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ সৈয়দ মনসুরুল হক, উপাধ্যক্ষ মোহাম্মদ আব্দুস শহিদ কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ পিয়ালী ভৌমিক, মৌলভীবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এড. মিজানুর রহমান টিপু, শ্রীমঙ্গল থানার ওসি কে এম নজরুল, জেলা ট্রাফিক বিভাগের অপারেশন ইন চার্জ মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন কাজল, ট্রাফিক ইন্সপেক্টর (শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ) স্বপন কুমার রায়, শ্রীমঙ্গল রেলওয়ে থানার ওসি মো. ইসমাইল, ট্যুরিষ্ট পুলিশের শ্রীমঙ্গল সাব জোনের পরিদর্শক গোপাল কৃষ্ণ দাস, শ্রীমঙ্গল সড়ক উপ-বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী রাশেদুল হক, পৌরসভার প্যানেল মেয়র কাজী আব্দুল করিম।
মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন তাজপুর ডিগ্রি কলেজের বাংলা বিভাগের প্রধান ড. এসএ মোতাকাব্বির মাসুদ, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব দেবাশীষ চৌধুরী রাজা, ভিক্টোরিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অয়ন চৌধুরী, শ্রীমঙ্গল ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি এএসএম ইয়াহিয়া, সাধারণ সম্পাদক হাজী কামাল হোসেন, শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রতিনিধি ডা: মো. সাজ্জাদ হোসেন হোসেন চৌধুরী, শ্রীমঙ্গল সদর ইউপি চেয়ারম্যান ভানু লাল রায়, শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবের সহসভাপতি ইসমাইল মাহমুদ, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি ঝলক চক্রবর্ত্তী, সাবেক সভাপতি নোমান আহমেদ সিদ্দীকি, শ্রীমঙ্গল লাইটেস, বাস, কার পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. ময়না মিয়া, ট্রাক ট্যাঙ্ক লরি,কাভার্ড ভ্যান পিকআপ শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান মিয়া, শ্রীমঙ্গল রেলওয়ে ষ্টেশন মাষ্টার মো. জাহাঙ্গীর আলম, বাংলাদেশ টি এস্টেট ষ্টাফ এসোসিয়েশনের সভাপতি মাহবুব রেজা, মৌলভীবাজার পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির পরিচালক জহির আহমেদ শামিম, কলামিষ্ট সৈয়দ আমিরুজ্জামান, সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক শুধাংসু রঞ্জন দাস, সমাজ কর্মি আবু তাইয়্যিব, দৈনিক খোলা চিঠি পত্রিকার সম্পাদক সরফরাজ আলী বাবুল, সাংবাদিক দীপঙ্কর ভট্টাচার্য্য লিটন,সৈয়দ সালাউদ্দিন ও সৈয়দ ছায়েদ আহমদ।